যায়যায়বেলা
যায়যায়বেলা

ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ, যুবক গ্রেপ্তার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা,

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় এক নারীকে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করার অভিযোগে রায়হান ভূঁইয়া নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার (১৭ নভেম্বর) দিবাগত রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে আখাউড়া থানা পুলিশ।

রায়হান উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের আজমপুর গ্রামের ইয়ার হোসেন ভূঁইয়ার ছেলে।

ভুক্তভোগী নারী জানান, স্বামী মাদকাসক্ত হওয়ায় দুই সন্তান নিয়ে প্রায় চার বছর ধরে আজমপুরে বাবার বাড়িতে বসবাস করে আসছেন তিনি। বাবা অসচ্ছল হওয়ায় প্রতিবেশী রায়হানের বাড়িতে তিনি ঝিয়ের কাজ নেন। একপর্যায়ে রায়হান তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। প্রস্তাবে রাজি না হলে, তার শিশু সন্তানকে হত্যা করে লাশ গুম করার ভয় দেখান রায়হান। এরপর নানা কৌশলে আত্মীয় ও বন্ধুবান্ধবের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে নিয়ে ওই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে সে।

তিনি আরও জানান, রোববার দুপুরে আজমপুর গ্রামের লোকমান মিয়ার বাড়িতে ডেকে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে রায়হান। এ সময় গোপনে সেই ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে সে। পরে ধর্ষণের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ওই নারীর কাছে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে। এতে ভিডিও মুছে ফেলা নিয়ে দুজনের মধ্যে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে ওই নারীর চিৎকার শুরু করলে, আশপাশের লোকজন সেখানে জড়ো হয়। পরে অভিযুক্ত রায়হান দৌড়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে আখাউড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে আখাউড়া থানার ওসি আসাদুল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত রায়হানকে রাতেই অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

যায়যায়বেলা