যায়যায়বেলা
যায়যায়বেলা

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন : প্রধানমন্ত্রীকে মোকতাদির চৌধুরীর স্যালুট

মাইন উদ্দিন চিশতী

বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য এবং জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন, শেখ হাসিনার একক প্রচেষ্টায় পদ্মা সেতু হয়েছে। এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে স্যালুট জানাই।

আজ শনিবার সকালে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে আনন্দ র‍্যালি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, নেতৃত্ব যদি বঙ্গবন্ধুর হাতে থাকে, বাঙালি পারে। নেতৃত্ব যদি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার হাতে থাকে, বাঙালি পারে। বাঙালি সক্ষম জাতি। কেবল প্রয়োজন হয় সক্ষম নেতৃত্বের।

উবায়দুল মোকতাদির বলেন, আজ সক্ষম নেতৃত্বের কারণে পদ্মা সেতু হয়েছে। এতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে পুরো দেশের স্থায়ী সংযোগ স্থাপন হয়েছে। এতে আর্থসামাজিক ও অর্থনীতির ক্ষেত্রে বিশাল অবদান রাখবে। আমরা মনে করি, এটা শেখ হাসিনার একক প্রচেষ্টায় হয়েছে। এজন্য আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্যালুট জানাই।

এর আগে শনিবার সকাল ১০টায় শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ার থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। পরে র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহরের ফারুকী পার্কে গিয়ে সুধী সমাবেশস্থলে শেষ হয়।

র‍্যালিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে র‌্যালি শেষে সুধী সমাবেশস্থলে বড় পর্দায় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করার পর দোয়া করা হয়। পরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অংশে পদ্মা সেতুর প্রতিকৃতির সামনে দাঁড়িয়ে বেলুন এবং পায়রা উড়িয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সঙ্গে একাত্মতা এবং আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করা হয়।

এ সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম, পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান, পৌরসভার মেয়র নায়ার কবীর, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমামুন সরকারসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ছাড়াও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

পরে সমাবেশস্থলে আবৃত্তি এবং সংগীতের পাশাপাশি বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নৃত্য পরিবেশন করা হয়।

যায়যায়বেলা