যায়যায়বেলা
যায়যায়বেলা

সরাইলে সাপুর মৃত্যুতে শোকসভা ও দোয়া মাহফিলে অনুষ্ঠিত

আব্দুল মমিন সরাইল প্রতিনিধি ॥
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ছাত্র লীগের সাবেক নেতা ও ব্যবসায়ী নজির আহমেদ সাপুর মৃত্যুতে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২৯ এপ্রিল শুক্রবার বিকাল তিন ঘটিকার সময় সরাইল সদর ইউনিয়নের আলী নগর মাদ্রাসা মাঠে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আলী নগর মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি শাহ মোঃ আবুল কাসেম এর সভাপতিত্বে ও নিহত নজির আহমেদের বড় ভাই জাফর আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আব্দুর রাশেদ বলেন, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও ব্যবসায়ী নজির আহমেদ এলাকায় অত্যন্ত ভদ্র ও শান্ত স্বভাবের ছেলে ছিল। নজির আহমেদের বাড়ি থেকে চোরকে ধরে নিল পুলিশ, চোরের সাথে বাদি হিসেবে বাড়ির মালিক সুস্থ সবল ব্যবসায়ী নজির আহমেদকেও ধরে নিল পুলিশ। আবার পুলিশ বলছে, আহত চোরকে চিকিৎসা দিতে হাসপাতালে নেওয়ার পথে চোরের সাথে বাদী নজির আহমেদ সাপুকে নেওয়ার সময় সাপু অসুস্থ হয়ে মারা যান। তিনি পুলিশকে লক্ষ্য করে আরও বলেন, আইনের কোন বইয়ে পেয়েছেন আহত চোরকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে চোরের সাথে বাদীকেও হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়। এ সব অবান্তর কথা বলে পুলিশ পার পাবে না। আসলে ব্যবসায়ী নজির আহমেদ এর হত্যাকান্ডের সাথে পুলিশ জড়িত। নিরুপেক্ষ তদন্ত সংস্থার মাধ্যমে এর সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। আওয়ামী লীগের এই নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের ব্যপার এই, যে পুলিশ আমাকে রক্ষা করবে, সেই পুলিশ আমাকে হত্যা করে। নজির আহমেদ সাপু হত্যাকান্ডে জড়িতদের শাস্থির দাবিতে প্রয়োজনে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকি দেন তিনি এবং এই হত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্থি দাবি করেন।
শোকসভায় উপস্থিত অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন  আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট তানভীর হোসেন কাউছার, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবি সহকারি সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ নুর মিয়া, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মোঃ আনোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট জয়নাল উদ্দিন জয়, মোস্তাফিজুর রহমান, সরাইল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব খান বাবুল, সাংবাদিক তাসলিম উদ্দিন, সাংবাদিক আবেদুর আর শাহীন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ ভূইয়া, সহিলপুর কলেজ পরিচালনা কমিটির সদস্য হানিফ মুন্সী, সাবেক মেম্বার শাহ রইছ আলী, ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন, জাপা নেতা বিল্লাল হোসেন, সাপুর স্কুল ব্যাচমেট সালা উদ্দিন সুরুজ মেম্বার,   অরুনা যুবগোষ্ঠীর  সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন, নিহত নজির আহমেদের বড় ভাই হোসাইন আহমেদ তফছির প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত করেন হাফেজ মাওলানা তানিম।
দোয়া পরিচালনা করেন স্থানীয় মসজিদের খতিব মুফতি নাঈম।
একটি ভূমিদস্যু চক্র এবং সরাইল থানায় পুলিশের নির্যাতনে ব্যবসায়ী নজির আহমেদ নিহত হওয়ার অভিযোগ করে বক্তাগণ এই হত্যাকান্ডের বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেন এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্থি দাবি করেন।
উল্লেখ্য গত ২১ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯ টায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের নিজসরাইল গ্রামের হাফেজ উবায়দুল্লাহর পুত্র, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নজির আহমেদ এর বাড়িতে চোর সন্দেহে আটক একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় সরাইল থানা পুলিশ। এ সময় সুস্থ সবল বাড়ির মালিক নজির আহমেদকেও বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। এর আধা ঘন্টা পর পরিবারের লোকজন থানায় গিয়ে জানতে পারেন নজির আহমেদ অসুস্থ। তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেছে পুলিশ। স্বজনরা হাসপাতালে ছুঁটে গিয়ে নজির আহমেদের লাশ দেখতে পায়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বজনদের জানান, হাসপাতালে নেওয়ার আগেই নজির আহমেদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নজির আহমেদ এর ভাই জাফর আহমেদ বাদী হয়ে ১৩জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
যায়যায়বেলা