যায়যায়বেলা
যায়যায়বেলা

স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে গৃহবধূর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক,

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় বিষাক্ত পোকা মারার ট্যাবলেট খেয়ে সাবিনা আক্তার (৩২)নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে।

সোমবার (০২জানুয়ারি)দুপুরের দিকে উপজেলার চান্দুরা ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সাবিনা আক্তার উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের হাতুড়া পাড়া গ্রামের আরজু মিয়ার মেয়ে ও একই উপজেলার চান্দুরা ইউনিয়নের জালালপুর গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী মো. মুনছুর মিয়ার স্ত্রী।

স্থানীয় ও নিহতের পরিবারের সূত্রে জানা যায়,প্রায় ১৩ বছর আগে হরষপুর ইউনিয়নের হাতুড়া পাড়া গ্রামের আরজু মিয়ার মেয়ের সঙ্গে একই উপজেলার চান্দুরা জালালপুর গ্রামের মো. মুনছুরের বিয়ে হয়।প্রায় সাড়ে ৪ বছর আগে মো. মুনছুর সৌদি আরবে যান।

সৌদি আরবে থেকে গত ডিসেম্বর মাসের ২৮ তারিখে ছুটিতে নিয়ে দেশে আসেন।মুনছুর দেশে আসার পর থেকেই তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ চলছিলো।সোমবার দুপুর ১টার দিকে স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে ঘরে থাকা বিষাক্ত পোকা মারার ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।পরে স্বামীর পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রিা তাৎক্ষণিক সাবিনাকে উদ্ধার করে,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ রাজু আহম্মেদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সতত্যা নিশ্চিত করে বলেন,পোকা মারার ট্যাবলেট খেয়ে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে শুনেছি।তার লাশ জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা আছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,বিজয়নগরের এক গৃহবধূ বিষাক্ত পোকা মারার ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন,পরে গৃহবধূকে উদ্ধার করে,ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে সদর মডেল থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

যায়যায়বেলা